বাঙালিনিউজ

বাঙালিনিউজ
দিনাজপুর প্রতিনিধি

দিনাজপুরের বিরল উপজেলার ধর্ম্মপুর ইউপির ধর্ম্মপুর টিকরীপাড়া গ্রামে স্বামীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগে স্ত্রীকে আটক করেছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারণা করছে, পরকীয়া প্রেমের কারণে স্ত্রী ঘুমের মধ্যে স্বামীকে গলা টিপে হত্যা করেছে। এলাকাবাসীও এমন সন্দেহ করছেন। জানা গেছে, গতকাল ০৮ আগস্ট ২০১৯ বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতের কোনো এক সময় এ হত্যাকাণ্ড ঘটতে পারে।

জানা গেছে, নিহত স্বামীর নাম ফরহাদুল ইসলাম (২৫)। তিনি বিরলের ধর্ম্মপুর টিকরীপাড়া গ্রামের মোজাহার আলীর ছেলে। তার আটক স্ত্রী তৈয়বা বেগম (২০) দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ উপজেলার ভোগনগর ইউপি’র চক মাহানপুর গ্রামের নূর ইসলামের কন্যা। ঘুমন্ত স্বামীকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগে তাকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় জনগণ ও পুলিশ জানায়, গতকাল ০৮ আগস্ট বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১০টার দিকে খাবার শেষে বিরলের ধর্ম্মপুর টিকরীপাড়া গ্রামে ফরহাদুল ইসলাম প্রতিদিনের মতো স্ত্রী তৈয়বা বেগম ও ছেলে মোজাম্মেলকে (৪) নিয়ে নিজ ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন।

কিন্তু রাত শেষে আজ ০৯ শুক্রবার সকাল ৬টার দিকে স্ত্রী তৈয়বা বেগম তার স্বামী মোজাহার আলী মারা গেছে বলে চিৎকার শুরু করলে, আশে-পাশের লোকজন দ্রুত ছুটে আসেন। এরপর তারা ঘর থেকে ফরহাদুলকে বারান্দায় এনে তার মৃত্যুর ব্যাপারে নিশ্চিত হন। এসময় এলাকাবাসীর জিজ্ঞাসাবাদে স্ত্রী তৈয়বার কথায় সন্দেহ হলে তাকে আটক করে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে স্বামীকে হত্যার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে স্ত্রী তৈয়বাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

বিরল থানার ওসি এটিএম গোলাম রসুল মিডিয়াকে জানান, লাশের সুরতহাল শেষে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এলাকাবাসীর তথ্যের ভিত্তিতে ঘুমন্ত স্বামী ফরহাদুলকে হত্যার অভিযোগে স্ত্রী তৈয়বাকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পরকীয়রা প্রেমের জের ধরে ফরহাদুলকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হতে পারে।

উল্লেখ্য, প্রায় সাড়ে ৪ বছর আগে তৈয়বা বেগমের সঙ্গে ফরহাদুলের বিয়ে হয়। এই দম্পত্তির মোজম্মেল নামে ৪ বছরের এক ছেলে আছে।

Print Friendly, PDF & Email