বাঙালিনিউজ
অ্যামাজন প্রধান জেফ বেজোস ও তার স্ত্রী ম্যাককেনজি বেজোস।

বাঙালিনিউজ
বিজ্ঞান-প্রযুক্তিডেস্ক

বিশ্বের শীর্ষ ধনী, আমাজনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জেফ বেজোস ও তাঁর স্ত্রী ম্যাকেনজি আর একসঙ্গে থাকবেন না। কারণ, এই বিশ্বসেরা ধনকুবের দম্পতির সংসার ভাঙছে, ২৫ বছর একসঙ্গে ঘর করার পর।

জানা গেছে, স্ত্রী ম্যাকেনজি বেজোসের সঙ্গে বিচ্ছেদ হতে যাচ্ছে জেফ বেজোসের। বিশ্বের শীর্ষ ধনী জেভ বেজোস ও তার স্ত্রী ম্যাকেনজি বেজোস সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিচ্ছেদের কথা নিজেরাই জানিয়েছেন। তাঁদের চার সন্তান রয়েছে।

ব্লুমবার্গের খবরে বলা হয়েছে, গতকাল ০৯ জানুয়ারি ২০১৯ বুধবার টুইটারে এক বার্তায় জেফ বেজোস ও ম্যাকেনজি বেজোস নিজেদের আগামীতে আলাদা থাকার কথা জানান।

বাঙালিনিউজ

হেজ ফান্ড ডি. ই–তে কাজ করার সময় জেভ বেজোস ও ম্যাকেনজির পরিচয়। জেফ বেজোস ইনভেস্টমেন্ট ফার্মে চাকরিরত অবস্থায় মার্কিন ঔপন্যাসিক ম্যাককেনজি টাটলের (MacKenzie Tuttle) সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন ১৯৯৩ সালে।

পরবর্তীতে ধনী এই দম্পত্তি ১৯৯৪ সালে ওয়াশিংটনের সিয়াটেলে চলে আসেন এবং এখানেই অ্যামাজন প্রতিষ্ঠার সকল পরিকল্পনা করেন। ওই বছরই জেফ আমাজন চালু করেন। তিন পুত্র এবং একটি মেয়েকে নিয়ে ছোট পরিবার বেজোস দম্পত্তির। তবে মজার বিষয়, পৃথিবী বিখ্যাত ধনী এই দম্পত্তির প্রত্যেকটি সন্তান দত্তক নেওয়া হয় চীন থেকে।

বাঙালিনিউজ

ব্লুমবার্গের কোটিপতি সূচক অনুসারে, ৫৪ বছর বয়সের জেফ বেজোসের এখন সম্পদের পরিমাণ ১৩৭ বিলিয়ন ডলার। তবে বিচ্ছেদের পর কোটিপতিদের তালিকায় অবনমন হবে জেফ বেজোসের। কমবে সম্পদের পরিমাণ। আর এতে করে মাইক্রোসফটের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসের সামনে বিশ্বের এক নম্বর ধনী হওয়ার সুযোগ চলে আসবে।

কারণ ৪৮ বছর বয়সী স্ত্রী ম্যাকেনজির সম্পদের পরিমাণ ৬৯ বিলিয়ন ডলার। ম্যাকেনজি এখন বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী নারীর তালিকায় আছেন।

Print Friendly, PDF & Email