বাঙালিনিউজ
চট্টগ্রামপ্রতিনিধি

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুবাই থেকে আসা এক যাত্রী কৌশলে খেলনা পিয়ানো, ডিভিডি প্লেয়ার ও ব্লেন্ডারের যন্ত্রাংশের মধ্যে লুকিয়ে সোনা পাচারের চেষ্টা করেছিলেন। বৈদ্যুতিক পণ্যের মধ্যে পাচারকালে বাড়তি কৌশল হিসেবে এসব সোনার বারের বাইরে দেওয়া হয় রূপার প্রলেপ। এত কৌশলেও শেষ রক্ষা হয়নি তার। কাস্টমস কর্মকর্তারা এসব পণ্যের ভেতর থেকে ৪ কেজি ২৫৬ গ্রাম সোনা উদ্ধার করেছেন।

আজ রোববার সকালে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সোনা পাচারের এঘটনায় জড়িত মো. শওকত আকবর নামে এক যাত্রীকে আটক করা হয়েছে। তাঁর বাড়ি চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলায়।

বিমানবন্দর কাস্টমসের সহকারী কমিশনার মাহবুবুর রহমান জানান, ‘কাস্টমস কমিশনারের কাছ থেকে গোপন সংবাদ পাওয়ার পর ওই যাত্রীকে তল্লাশি করা হয়। তাঁর ব্যাগ স্ক্যানে দেওয়ার পর সোনার বারের উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়া যায়। এরপর ফুট মেসেঞ্জার ও ব্লেন্ডারের মোটর খুলে ৩ কেজি ৪৪০ গ্রাম গোলাকৃতির সোনার বার পাওয়া যায়। এ ছাড়া খেলনা পিয়ানো, ডিভিডি প্লেয়ারের অ্যাড পটার ও মোবাইলের ভেতর থেকে ৮১৬ গ্রাম সোনা পাওয়া যায়।

উদ্ধার হওয়া সোনার আনুমানিক বাজার মূল্য ১ কোটি ৮০ লাখ টাকা। এব্যপারে ওই যাত্রীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে বলে সহকারী কমিশনার জানান।

Print Friendly, PDF & Email