বাঙালিনিউজ
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

বাঙালিনিউজ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গত ০৬ নভেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে ‘হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভে’ তথা প্রতিনিধি পরিষদে বিরোধী দল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। এখন পর্যন্ত প্রাপ্ত ফলাফলে জানা গেছে, ডেমোক্র্যাটদের দখলে গেছে ২২২টি আসন এবং রিপাবলিকানদের দখলে ১৯৯টি। চূড়ান্ত ফলাফলে ডেমোক্র্যাটদের মোট আসন সংখ্যা ২৩০ ছাড়িয়ে যেতে পারে।

গত আট বছরের মধ্যে এই প্রথমবারের মতো ডেমোক্রেটরা নিম্নকক্ষের নিয়ন্ত্রণ হাতে পেল। কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের নিয়ন্ত্রণ নেয়ার ফলে ডেমোক্র্যাটরা প্রেসিডেন্টের প্রস্তাবে বাঁধা দেয়ার ক্ষমতা অর্জন করলো। ফলে প্রতিনিধি পরিষদের ফলাফল নিয়ে ‘চাপে’ আছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তবে মার্কিন সিনেটের নিয়ন্ত্রণ দখলে রেখেছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের রিপাবলিকান দল। কংগ্রেসের ঊর্ধ্বতন কক্ষে রিপাবলিকানরা সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখলেও সেখানে তাদের অবস্থান খুব একটা শক্ত নয়। সিনেটে তাদের আসন ৫১টি আর ডেমোক্র্যাটদের আসন ৪৯টি।

যদিও সিনেট নির্বাচনে কিছুটা সুবিধাজনক অবস্থানে ছিল রিপাবলিকানরা। এবারের সিনেট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটদের লড়াই করতে হয়েছে ২৬টি আসনের জন্য। সেখানে রিপাবলিকানরা লড়াই করেছে মাত্র ৯টি আসনে।

বিবিসি’র প্রতিবেদক অ্যান্থনি যুরখারের বিশ্লেষণ অনুযায়ী, সিনেটে রিপাবলিকানদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তাঁর নির্বাহী এবং বিচারিক ক্ষমতা ব্যবহারের যথেষ্ট সুযোগ পাবেন।

তবে হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে ডেমোক্র্যাট সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আইন প্রণয়ন বিষয়ক যে কোনো প্রস্তাবে বাধা দেয়ার ক্ষমতা থাকবে তাদের হাতে।

বাঙালিনিউজ
প্রতিনিধি পরিষদে ডেমোক্র্যাটরা ভালো করায় সমর্থকদের উল্লাস

অঙ্গরাজ্য পর্যায়ে গভর্নর নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটদের নিয়ন্ত্রণে এসেছে এসেছে ২১টি গভর্নর পদ। এর মধ্যে ৭টি রিপাবলিকানদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছে তারা। অন্যদিকে রিপাবলিকান দল ২৫টি অঙ্গরাজ্যের নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখতে পেরেছে।

গত মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রে মধ্যবর্তী নির্বাচনে ভোট নেওয়া হয়। নির্বাচনে হাউস অব রিপ্রেজেনটেটিভের সব আসনে এবং সিনেটের ৩৫ আসনে ভোট নেওয়া হয়। ৩৬টি অঙ্গরাজ্যে গভর্নর পদে এবং অঙ্গরাজ্য পরিষদ ও স্থানীয় পরিষদের অনেক আসনের জন্যও ভোট নেওয়া হয়।

রিপাবলিকানরা সিনেটের নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে পেরেছে এবং তারা ফ্লোরিডাসহ অনেক স্থানে অল্পের জন্য পরাজয়ের হাত থেকে বেঁচে গেছে। অপরদিকে গত আট বছরের মধ্যে এই প্রথমবারের মতো ডেমোক্রেটরা নিম্নকক্ষের নিয়ন্ত্রণ হাতে পেল। তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কংগ্রেসের মধ্যবর্তী নির্বাচনকে ‘দারুণ সফল’ বলে বর্ণনা করেছেন।

এএফপি জানায়, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত এই মধ্যবর্তী নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের রিপাবলিকান পার্টি প্রতিনিধি পরিষদের নিয়ন্ত্রণ হারানো সত্ত্বেও তিনি এমন দাবি করেন। রিপাবলিকানরা সিনেটের নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে পেরেছে এবং তারা ফ্লোরিডাসহ অনেক স্থানে অল্পের জন্য পরাজয়ের হাত থেকে বেঁচে গেছে। টুইটার বার্তায় প্রেসিডেন্ট বলেন, “আজ রাত দারুণ সফল। সকলকে ধন্যবাদ!”

এর আগে, স্থানীয় সময় মঙ্গলবার সকাল ৬টায় পূর্ব উপকূলীয় রাজ্য নিউ হ্যাম্পশায়ার, নিউ জার্সি, নিউ ইয়র্ক, ভার্জিনিয়া ও মাইনের ভোটাররা সময়ের পার্থক্য অনুযায়ী বিভিন্ন সময়ে ভোট গ্রহণ শেষ করেন।

‘আমাকে রাষ্ট্র চালাতে দিন, আপনি সিএনএন চালান’

বাঙালিনিউজ

আঙুল উঁচিয়ে সাংবাদিককে থামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন ট্রাম্প/ সংগৃহীত

এদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনের সার্বিক বিষয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দেশটির সংবাদমাধ্যম সিএনএন’র সাংবাদিকের উপর আবারও চড়াও হয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে সিএনএন-এর হোয়াইট হাউজ বিষয়ক প্রধান প্রতিবেদক জিম অ্যাকোস্টা অভিবাসী ইস্যুতে ট্রাম্পকে প্রশ্ন ছোড়েন। যা থেকেই মূলত উভয়ের মধ্যে বিতর্কের সূচনা। এ সময় ট্রাম্প ওই সাংবাদিককে বলেন, ‘আমাকে রাষ্ট্র চালাতে দিন, আপনি সিএনএন চালান এবং আপনি যদি এটি করতে পারেন তাহলে আপনার মানদণ্ড অনেক উপরে উঠবে’।

এরপর অ্যাকোস্টা আরেকটি প্রশ্ন করার ইচ্ছা পোষণ করলে ট্রাম্প বলেন, ‘যথেষ্ট হয়েছে (দ্যাটস্ ইনাফ)’।

এর মধ্যে অন্য এক নারী সাংবাদিক প্রশ্ন করতে চাইলে ক্ষমা চেয়ে সিএনএন সাংবাদিক অ্যাকোস্টা রাশিয়ার তদন্তের বিষয়টি উল্লেখ করেন। তাকে থামিয়ে দিয়ে ট্রাম্প বলেন, আমি এ বিষয়ে কোনো কিছু অবগত নই।

এ সময় ট্রাম্প ওই সাংবাদিকের উপর চড়াও হয়ে বলেন, ‘মাইক্রোফোন রাখুন, সিএনএন-কে অবশ্যই লজ্জিত হওয়া উচিত…আপনার মতো ব্যক্তি তাদের জন্য কাজ করে। আপনি একজন অভদ্র, ভয়ঙ্কর ব্যক্তি। আপনি সিএনএন’র জন্য কাজ করা উচিত নয়’।

শুধু অ্যাকোস্টাই নন সংবাদ সম্মেলনে এনবিসি’র প্রতিবেদক পিটার আলেকজান্দ্রার উপরও চড়াও হন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এদিকে জানা গেছে, সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বাদানুবাদের জেরে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন’র সাংবাদিক জিম অ্যাকোস্টার হোয়াইট হাউসের পাস বাতিল করা হয়েছে। ফলে পরবর্তী নোটিশ না পাওয়া পর্যন্ত তিনি হোয়াইট হাউসে প্রবেশ করতে পারবেন না।

এ বিষয়ে হোয়াইট হাউসের প্রেস সেক্রেটারি সারাহ স্যান্ডার্স বলেছেন, এক সাংবাদিকের পাস বাতিল করা হয়েছে। কারণ তিনি এক নারীর গায়ে হাত তুলেছেন। হোয়াইট হাউস কখনই এ ধরনের আচরণ বরদাশত করবে না। পাস বাতিলের বিষয়টি জানিয়ে সাংবাদিক জিম অ্যাকোস্টাও টুইট করেছেন। এদিকে সংবাদ সম্মেলনের ভিডিওটি অনলাইনে মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে।

২০১৬ সালের নভেম্বরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর ২০১৭ সালের ১১ জানুয়ারিতে প্রথম সংবাদ সম্মেলনে আসেন ট্রাম্প। সেদিনই সিএনএন’র এক প্রতিবেদকের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময়ে জড়িয়ে পড়েন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

Print Friendly, PDF & Email