বাঙালিনিউজ

বাঙালিনিউজ
খেলারডেস্ক

একের পর এক যৌন হেনস্তার অভিযোগ আসছে। হলিউডি ঝড়ে বলিউড তসনস। এবার অভিযোগের তির ক্রিকেট তারকাদের বিরুদ্ধে। ইতোমধ্যে অভিযোগ উঠেছে শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট সুপারস্টার রানাতুঙ্গা ও মালিঙ্গার বিরুদ্ধে। অভিযোগ বড় ভয়ঙ্কর। যেন এক একটা বিস্ফোরণ। প্রচণ্ড বিস্ফোরণে কেঁপে উঠছে বিবেক। একি কুৎসিত রূপ বিখ্যাতদের!

#metoo আন্দোলন ক্রমেই জোরদার হচ্ছে। যৌন হেনস্থা নিয়ে সরব হচ্ছেন একের পর এক নামজাদা মহিলা। দ্বিধা-দ্বন্দ্ব ছেড়ে প্রকাশ্যে নিজেদের উপর হওয়া নির্যাতনের বিবরণ দিচ্ছেন তাঁরা।

এবার শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট সুপারস্টার মালিঙ্গার বিরুদ্ধে ভয়ঙ্কর অভিযোগ এনেছেন গায়িকা চিন্ময়ী শ্রীপদ। তিনি টুইটারে হ্যাশট্যাগ মিটু আন্দোলন নিয়ে বেশ সরব। চিন্ময়ী যেন আরও পাঁচজন মহিলাকে এই আন্দোলনে সামিল হওয়ার জন্য শক্তি জুগিয়ে চলেছেন। তাঁর অভিযোগের তির শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি পেসার লাসিথ মালিঙ্গার দিকে।

টুইটারে চিন্ময়ী লিখেছেন, ”আমি নাম প্রকাশ করতে চাই না। কয়েক বছর আগে মুম্বইয়ে আমার সঙ্গে একটা জঘন্য ঘটনা ঘটেছিল। আমরা মুম্বইয়ে এক হোটেলে ছিলাম। সেখানে আমার বান্ধবীকে খুঁজছিলাম। এমন সময় বিখ্যাত এক শ্রীলঙ্কান ক্রিকেটারের সঙ্গে হোটেলের লনে দেখা। তখন আইপিএল চলছিল। তিনি আমাকে বললেন, আমার বান্ধবী নাকি তার রুমেই আছে। আমি বান্ধবীর খোঁজে তাঁর রুমে গেলাম। কিন্তু সেখানে আমার বান্ধবী ছিল না। সেই ক্রিকেটার তখন আচমকাই আমাকে ধাক্কা দিয়ে বিছানায় ফেলে দিলেন। তার পর আমার মুখের ওপর চড়ে বসলেন। আমি বেশ লম্বা এবং স্থূলকায়। ওঁর সঙ্গে গায়ের জোরে পেরে উঠছিলাম না। কিন্তু ভয়ে, লজ্জায় আমি মুখ ও চোখ বন্ধ করে ফেলি। সেই ক্রিকেটার আমার গাল ব্যবহার করে। এমন সময় হোটেলের কর্মচারী কিছু জিনিস নিয়ে এসে দরজায় নক করে। ক্রিকেটার দরজা খুলতে চলে যায়। আমি দ্রুত বাথরুমে গিয়ে মুখ ধুয়ে নিই। এবং হোটেল কর্মচারী বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রুম থেকে বেরিয়ে যাই। ভয়ংকর অপমানিত বোধ করছিলাম আমি। জানি কিছু মানুষ এখন বলবে, আমি জেনে বুঝেই সেই রুমে গিয়েছি। কেউ বলবে, আমার সঙ্গে এর চেয়েও ভয়ংকর কিছু হওয়া উচিত ছিল।”

বাঙালিনিউজ

শ্রীলঙ্কার আরেক কিংবদন্তি ক্রিকেটার অর্জুন রণতুঙ্গার বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন এক বিমানসেবিকা মাত্র ২৪ ঘন্টা আগে। যৌন হেনস্থার অভিযোগ করেছেন তিনি। বোধিসত্ত্বা ইয়ামাইওহো নামের সেই মহিলা রণতুঙ্গার বিরুদ্ধে অভিযোগে তাঁর জীবনে ঘটে যাওয়া এক ঘটনা শেয়ার করেছেন তিনি। সেই ঘটনা নিচে তুলে ধরা হল-

”আমার এক বান্ধবীর নাম বন্দনা। মুম্বইয়ের জুহু সেন্টিউর হোটেলে ভারতীয় ও শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটারদের থেকে অটোগ্রাফ নিতে যায় সে। বন্দনা ঠিক করেছিল, ও ক্রিকেটারদের হোটেলের ঘরে যাবে। সেই সময় আমিও সঙ্গে যাব ঠিক করি। ক্রিকোটররা ছিল সাত জন। আমরা দুই। এর পর ওরা দরজার ছিটকিনি দিয়ে দেয়। আমার অস্বস্তি বাড়তে থাকে। বন্দনাকে ঘর থেকে বেরোতে বললেও ও রাজি হচ্ছিল না। এর পর একজন ক্রিকেটার হোটেলের সুইমিং পুলের দিকে আমাকে নিয়ে হাঁটতে যাবে বলে জানায়। তখন সন্ধ্যা সাতটার কাছাকাছি বাজে। সুইমিং পুল হোটেলের পিছন দিকে। সেখানে কম আলো ছিল। আমি সুইমিং পুলের ধারে গিয়ে বন্দনা এবং ভারতীয় ক্রিকেটারদের খুঁজছিলাম। কিন্তু কাউকে দেখতে পাইনি। তার মধ্যেই হঠাৎ রণতুঙ্গা পিছন থেকে এসে আমার কোমর জড়িয়ে ধরেন। আমার বুকে হাত দেওয়ার চেষ্টা করেন। আমি প্রচণ্ড ঘাবড়ে গিয়ে চিৎকার করি। রণতুঙ্গার পায়ে জোরে লাথি মারি। পুলিশকে জানাব, পাসপোর্ট বাজেয়াপ্ত করে দেব ইত্যাদি ভয় দেখাতে শুরু করি। তারপর ছুটে হোটেলের রিসেপশনে যাই। ঘটনাটা বলি ওদের। কিন্তু রিসেপশন থেকে জানায়, ওটা আমাদের ব্যক্তিগত বিষয়, হোটেলের কিছু করার নেই।”

এখন #metoo ঝড়ে উত্তাল সব দিক। বলিউড তারকা থেকে শুরু করে নামজাদা ক্রিকেটার। রেহাই পাচ্ছেন না কেউই। পথ দেখিয়েছিলেন বলিউড অভিনেত্রী তনুশ্রী দত্ত। তাঁর দেখানো সেই পথে হাঁটতে শুরু করেছেন দেশের বিভিন্ন স্তরের মহিলারা। কর্মক্ষেত্র হোক বা ট্রেনর কম্পার্টমেন্ট, মহিলারা নিজেদের সঙ্গে হওয়া একের পর এক নির্যাতনের ছবি তুলে ধরছেন জনসমক্ষে।

নানা পাটেকর, পরিচালক বিকাশ বহেল, অভিনেতা অলোক নাথ, গায়ক অভিজিৎ, সাংবাদিক এমজে আকবরের মতো একের পর হেভিওয়েট ব্যক্তিত্বদের বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে। বিভিন্ন ক্ষেত্রে মহিলারা একের পর এক পুরুষের বিরুদ্ধে সরব হচ্ছেন। তাই নিয়ে চলছে তোলপাড় সবদিকে। সূত্র: জি ২৪ ঘণ্টা.কম।