বাঙালিনিউজ
কক্সবাজারপ্রতিনিধি

টেকনাফের উখিয়ায় বিভিন্ন ক্যাম্পে বসবাসরত রোহিঙ্গারা প্রতিনিয়ত সপরিবারে উধাও হয়ে যাচ্ছে। এদের মধ্যে অনেকেই মালয়েশিয়া পাড়ি জমানোর উদ্দেশ্যে বের হয়ে দালালের খপ্পরে পড়ছেন। আবার কিছু রোহিঙ্গা উন্নত জীবনের আশায় দেশের বিভিন্ন স্থানে অবস্থানরত আত্মীয়-পরিজনের আহ্বানে ক্যাম্প ছাড়ছেন। এমন কিছু রোহিঙ্গাও আছেন যারা বিভিন্ন শিল্প বা ব্যবসায়ি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে বাংলাদেশেই স্থায়ীভাবে বসবাসের উদ্দেশ্যে ক্যাম্প ত্যাগ করছেন।

প্রতিরোধে তেমন কোনো ব্যবস্থা না থাকায় রোহিঙ্গাদের মধ্যে ক্যাম্প পালানোর প্রবণতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। শরনার্থী শিবির থেকে পালানোর জন্য রোহিঙ্গারা বিভিন্ন অপকৌশলেরও আশ্রয় নিচ্ছে। চলতি মাসেই মাছ সরবরাহের কাজে ব্যবহৃত ড্রামের ভিতরে ঢুকে সড়ক পথে পালানোর সময় সেনাবাহিনী ও পুলিশের পৃথক অভিযানে ১০ জন রোহিঙ্গা আটক হয়েছে। এদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা প্রদান করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

টেকনাফে রোহিঙ্গা ক্যাম্পকে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা দালাল সিন্ডিকেট মালয়েশিয়া পাড়ি জমানোর জন্য রোহিঙ্গাদের উদ্বুদ্ধ করছে বলে অভিযোগ ওঠেছে। গত মাসের প্রথম সপ্তাহে বিজিবি টেকনাফ শাহপরীর দ্বীপ চরাঞ্চল থেকে ১১ জন রোহিঙ্গাকে আটক করে উখিয়ার কুতুপালং ক্যাম্পে হস্তান্তর করেছে। এসব রোহিঙ্গা দালালের খপ্পরে পড়ে মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে ক্যাম্প ত্যাগ করেছিল।

Print Friendly, PDF & Email