বাঙালিনিউজ

বাঙালিনিউজ
নেত্রকোনা প্রতিনিধি

আজ ১১ জুন ২০১৯ মঙ্গলবার বেলা ১২টা দিকে, নেত্রকোনা সদর উপজেলার সাকুয়া গন্ধর্বপুর গ্রামের বাজারের পাশে বিষ্ণু বর্মণ (৬০) নামের এক ব্যক্তিকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এই ঘটনায় ইতোমধ্যে তাসকিন (২৮) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, ঘটনার সময় বিষ্ণু বর্মন তার নিজ বসতঘরে ছিলেন। এ সময় একই গ্রামের এম কে আহাদের মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলে তাসকিম ইবনে আহাদ তার ঘরে ঢুকে দা দিয়ে কুপিয়ে তার গলা থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন করে ফেলে।

নেত্রকোনা সদর সার্কেলের সহকারী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফখরুজ্জামান জুয়েল এই ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেছেন, পুলিশ খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে আসামি ধরতে সক্ষম হয়েছে।

এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনার ব্যাপারে স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সদর উপজেলার গন্ডবপুর গ্রামের বিষ্ণু বর্মণ নিজ বাড়িতে একা থাকতেন। তার ছেলে মেয়েরা ঢাকায় বসবাস করেন। আজ মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে বিষ্ণুর বাড়ি থেকে হাতে দা নিয়ে পুকুরে রক্ত ধুতে যায় একই গ্রামের এম এ আহাদের মানসিক ভারসাম্যহীন ছেলে তাসকিন।

এ সময় তাসকিনের হাতে রক্ত মাখা দা দেখে স্থানীয় লোকজনের সন্দেহ হয়। ফলে তারা দ্রুত বিষ্ণুর ঘরে ছুটে যায় এবং তার দেখতে পায় বিষ্ণুর শরীর থেকে মাথা আলাদা করা হয়েছে। রক্তে ভেসে যাচ্ছে তার ঘর।

স্থানীয় লোকজন তাৎক্ষণিক ভাবে পুলিশকে বিষয়টি জানালে পুলিশ দ্রুত ঘটনান্থলে এসে অভিযান শুরু করে। এ সময় এলাকাবাসীর সহায়তায় পুলিশ তাসকিনকে আটক করতে সক্ষম হয়। ওই এলাকায় এই হত্যাকাণ্ডের খবর ছড়িয়ে পড়লে, বিষ্ণুর বাড়িতে উৎসুক জনতার ভিড় জমে যায়।

নেত্রকোনা মডেল থানার ওসি (তদন্ত) নাজমুল হাসান জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া ঘাতক তাসকিমকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। বিকেলে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা হয়নি। স্থানীয় লোকজন বলছেন, তাসকিন নামের ওই আটক যুবক মানসিক ভারসাম্যহীন।

Print Friendly, PDF & Email