নুসরাত হত্যার খুনিরা ছাড় পাবে না

বাঙালিনিউজ
ফেনী প্রতিনিধি

মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত খুনিরা ছাড় পাবে না বলেছেন, ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী। নুসরাতের খুনিদের কয়েকজন ইতিমধ্যে গ্রেফতার হয়েছে। অন্যরাও শিগগিরই গ্রেফতার হবে।

গত ১২ এপ্রিল ২০১৯ শুক্রবার রাতে সোনাগাজী পৌর এলাকার উত্তর চরচান্দিয়া গ্রামে নুসরাতের কবর জিয়ারত করার পর তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় নিজাম হাজারী বলেন, আমি ব্যক্তিগতভাবে নুসরাতের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছি। নুসরাত হত্যার বিচারে আইনি সহযোগিতা এবং আর্থিক সহযোগিতাসহ সব ধরনের সহযোগিতা আমি করব। আমি বিশ্বাস করি যে নুসরাতের খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত। যাতে ভবিষ্যতে কেউ এ ধরনের অপরাধ করতে না পারে। একজন মাদরাসাছাত্রীকে কোনো কারণ ছাড়া একজন অধ্যক্ষের আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করার মতো জঘন্য ঘটনার নিন্দা জানানোর ভাষা আমার নেই।

নিজাম হাজারী আরও বলেন, অগ্নিদগ্ধ হয়ে নিহত ‘নুসরাত জাহান রাফির’ নামে সোনাগাজীতে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবন ও একটি সড়কের নামকরণ করা হবে।

জানা যায়, নিজাম হাজারী ফেনীতে আসার পর গত ১২ এপ্রিল শুক্রবার রাতে নুসরাতের গ্রামের বাড়িতে ছুটে যান। সেখানে তিনি নুসরাতের বাবা মাওলানা কে এম মুসা, তার মা এবং ভাইসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সান্তনা দেন এবং সমবেদনা প্রকাশ করেন। এছাড়াও নুসরাতের মামলাসহ বিভিন্ন বিষয়ে খোঁজ-খবর নেন।

এসময় সোনাগাজী পৌর এলাকার উত্তর চরচান্দিয়া গ্রামে নুসরাতের কবর জেয়ারত করেন নিজাম উদ্দিন হাজারী । এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমান বিকম, সোনাগাজী আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাখাওয়াতুল হক বিটু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ও ফেনী পৌরসভার কাউন্সিলর বাহার উদ্দিন বাহার, চরচান্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন মিলন, মতিগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান রবিউজ্জামান বাবু, বগাদানা ইউপি চেয়ারম্যান কখম ইসহাক খোকনসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও দলীয় নেতৃবৃন্দ।

Print Friendly, PDF & Email