বাঙালিনিউজ
খেলারডেস্ক

সদ্য সমাপ্ত রাশিয়া বিশ্বকাপে অনেক অঘটনের জন্ম হয়েছে। গ্রুপ পর্বেই জার্মানির বিদায় নেওয়া থেকে শুরু করে শেষ ষোলতে আর্জেন্টিনা, স্পেন ও পর্তুগালের ছিটকে পড়া ছিল- সবই ছিল খেলার মাঠের অঘটন।
তবে মাঠের নব্বই মিনিটের লড়াই ছাড়াও ঘটেছে নানা অঘটন। বিশেষকরে রবিবারের ফাইনাল ম্যাচে মস্কোর লুঝনিকি স্টেডিয়ামে খেলা চলাকালিন মাঠের মধ্যে আকস্মিকভাবে ঢুকে পড়েছিলে চার সমর্থক। আর এ নিয়ে শুরু হয়েছে নানা আলোচনা-সমালোচনা-গুঞ্জন।

এদের ম্যধ্য তিনজন মহিলা ও একজন পুরুষ ছিলেন। রাশিয়ায় বিশ্বকাপ ফাইনালে এমন কাণ্ড ঘটিয়ে গোটা বিশ্বের নজর নিজেদের দিকে ফিরিয়ে ছিলেন এই চারজন। তাদের দুঃসাহস দেখে অবাক হয়েছিল পুরো বিশ্ব। ভেরুনিকা নিকুলশিনা, অলগা পাখতুসোভা ও অলগা কুরাসোভা ও একমাত্র পুরুষ দর্শক পিতর ভেরজিলভ কৃতকর্মের জন্য যে গুরুতর শাস্তি পাবেন তা কাম্যই ছিল।

পুতিনবিরোধী ‘পুসি রায়ট’ দলের সদস্য এই চারজন। সব থেকে বড় ব্যাপার, ফ্রান্স-ক্রোয়েশিয়ার ফাইনাল ম্যাচে সেদিন মাঠে হাজির ছিলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিন। চার দর্শক যখন মাঠে ঢুকলেন, তাণ্ডব করলেন। সেসবই পুতিন দেখলেন সামনে থেকে। ফলে ব্যাপারটা যে ভয়ানক পরিণতির দিকে এগোবে তা বলাই বাহুল্য। মাঠে ঢুকে পড়ার জন্য কড়া শাস্তি পেয়েছেন চার দর্শক। ১৫ দিনের জেল ও আগামী তিন বছর রাশিয়ার কোনো খেলা মাঠে বসে দেখতে পাবেন না তারা।

সেই চারজনের একজন কুরাসোভা জানিয়েছেন, তাদের মূল উদ্দেশ্য ছিল বাকস্বাধীনতার পক্ষে প্রশ্ন ও ফিফার নীতির বিরুদ্ধে বিরোধিতা জ্ঞাপন।

এদিকে, বিশ্বকাপ ফুটবলের ফাইনালে কঠোর নিরাপত্তাবলয় ফসকে মাঠে দর্শক ঢুকে পড়ার ঘটনা বিরল! গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বিঘ্ন ঘটিয়েছিলেন তারা। সেইসঙ্গে প্রশ্ন উঠেছিল রাশিয়ায় বিশ্বকাপের নিরাপত্তা নিয়েও। এত ঘটনার পর এই চারজনকে যে বিনা শাস্তিতে ছেড়ে দেওয়া হবে না তা ধারণা করা গিয়েছিল।

Print Friendly, PDF & Email