বাঙালিনিউজ
তামিম-লিটনের উদ্ধোধনী জুটিতে এসেছে শতাধিক রান। ছবি: এএফপি

বাঙালিনিউজ
ক্রীড়া প্রতিবেদক

ত্রিদেশীয় সিরিজে আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচে, বাংলাদেশ স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডকে খুব সহজেই হারিয়েছে। আয়ারল্যান্ডের করা ২৯২ রান তাড়া করতে নেমে ৬ উইকেটেই জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। সেটাও আবার ৪২ বল তথা ৭ ওভার হাতে রেখেই। আগামী ১৭ মে ২০১৯ শুক্রবার ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে গতকাল ১৫ মে ২০১৯ বুধবার ২৯২ রান তাড়া করতে নামার পর, বাংলাদেশের ব্যাটিং দেখে কখনোই মনে হয়নি টাইগাররা হারাতে পারেন। বরং চলতি ত্রিদেশীয় সিরিজে রান তাড়া করতে নেমে সহজ জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে মাশরাফি বিন মুতর্জার টাইগার বাহিনী।

আগামী ১৭ মে শুক্রবার পূর্ণ আত্মবিশ্বাস নিয়েই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডের মাঠে চলমান ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনাল লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আগের দুটি ম্যাচেই আড়াই শ-র আশপাশের সংগ্রহ তাড়া করতে নেমে কোনো কিছু বুঝতে দেননি তামিম-সৌম্যরা। বুধবারও ২৯২ রানের টার্গেট সহজে পূরণ করেছেন টাইগাররা। যদিও আগেই ফাইনাল নিশ্চিত হওয়ায়, আয়ারল্যান্ডের সঙ্গে এই ম্যাচ আনুষ্ঠানিকতায় পরিণত হয়েছিল। তামিম (৫৭), লিটন (৭৬) ও সাকিব (৫০) এই টার্গেট পূরণ করেছেন।

তবে সাকিব আল হাসান ৩৬তম ওভার শেষে মাঠ ছাড়েন। তার আগে খেলেছেন ৫১ বলে ৫০ রানের জমাট ইনিংস। সাকিব কী কারণে মাঠ ছাড়েন তা পরিষ্কার জানা যায়নি। পূর্বের চোট থাকায় ফাইনালের আগে সম্ভবত এই চোট নিয়ে বিপদ বাড়াতে চাননি তিনি। তবে সাকিবের মাঠ ছাড়ার সময় বাংলাদেশ জয় প্রায় নিশ্চিত। তখন ৮৪ বলে দরকার ছিল মাত্র ৪৬ রান। সাকিব স্বেচ্ছায় মাঠ ছাড়ার পরও বাংলাদেশের ছিল ৬ উইকেট।

বাংলাদেশ যখন ৫৬ বলে ১৫ রানের দূরত্বে, তখন আউট হন মোসাদ্দেক (১৪)। আগের দুটি ম্যাচে ব্যাটিংয়ের সুযোগ না পাওয়া সাব্বির রহমানকে নিয়ে বাকি পথ পাড়ি দেন মাহমুদউল্লাহ।

এর আগে উদ্ধোধনী জুটিতে দুর্দান্ত সূচনা করেন তামিম ইকবাল ও লিটন দাস। সৌম্য সরকারের জায়গায় দলে সুযোগ পেয়ে লিটন ৭৬ রান করেন। তাঁর আউট হওয়ার আগে ফিরেছেন তামিম। ১৭তম ওভারে তামিম আউট হওয়ার আগে উদ্ধোধনী জুটিতে যোগ হয়েছে ১১৭ রান।

এই দুজনের ইনিংস নিয়ে আক্ষেপও আছে। তাঁদের কেউ-ই ইনিংস লম্বা করতে পারেননি। তিনে সাকিব নেমে রানের গতি ধরে রাখার পাশাপাশি ব্যাটিংয়ে মনোযোগী হন। টপ অর্ডারে প্রথম তিন ব্যাটসম্যানের ফিফটি দেশবাসীকে বিশ্বকাপে লড়াইয়ের সাহস বাড়িয়ে দিয়েছে।

প্রথম ৫ ব্যাটসম্যানের কাছ থেকেই এসেছে দুই অঙ্কের ইনিংস। মুশফিকুর রহিম ফিরেছেন ৩৫ রানে। একই রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন মাহমুদউল্লাহ। দুর্দান্ত এই জয়ে সবাই খুশি। তবে কেউ সেঞ্চুরি পাননি।

সাব্বির যখন ব্যাটিংয়ে নামেন তখন জয়ের জন্য দরকার ১৫ রান। এর মধ্যে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ৭ রান। তবে সাব্বির ব্যাটিংয়ের সুযোগ সেভাবে না পেলেও জয়টা পেয়েছেন ৪ মেরে!

বাংলাদেশ দুর্দান্ত খেলেই ফাইনালে উঠেছে। এখন লক্ষ্য, ত্রিদেশীয় এই সিরিজের শিরোপা জয় করে বিশ্বকাপ জয়ের লক্ষে ইংল্যান্ডের লড়াইয়ে মাঠে হাজির হওয়া!

Print Friendly, PDF & Email