বাঙালিনিউজ
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন। সিঙ্গাপুর বৈঠকের ফাইল ছবি

বাঙালিনিউজ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

হ্যানয়ে ও উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উনের মধ্যে আগামী ২৭ ও ২৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে নিজেই বৈঠকের স্থানটি নিশ্চিত করেছেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এই খবর জানিয়েছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার স্টেট অব দি ইউনিয়নের বার্ষিক ভাষণে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সঙ্গে তাঁর বৈঠক ভিয়েতনামে আগামী ২৭-২৮ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছিলেন। তবে সমাজতান্ত্রিক দেশটির কোন শহরে এ বৈঠক হবে, তা তিনি সুনির্দিষ্ট করে জানাননি।

দুই নেতার আসন্ন শীর্ষ বৈঠকের আগে উত্তর কোরিয়া সফররত মার্কিন বিশেষ দূত স্টিফেন বিগেনের সঙ্গে পিয়ংইয়ংয়ের কর্তাব্যক্তিদের ‘ফলপ্রসূ আলোচনা’ হয়েছে বলেও দাবি করেছেন ট্রাম্প।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, “খুবই ফলপ্রসূ বৈঠক এবং কিম জং উনের সঙ্গে দ্বিতীয় বৈঠকের সময় ও তারিখ নিয়ে সমঝোতা শেষে আমার প্রতিনিধিরা মাত্রই উত্তর কোরিয়া ছেড়েছেন। আমাদের বৈঠকটি ভিয়েতনামের হ্যানয়ে হতে যাচ্ছে, ফেব্রুয়ারির ২৭ ও ২৮ তারিখ।”

বিগেনের পিয়ংইয়ং ছাড়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ও। উত্তর কোরিয়া বিষয়ক এই বিশেষ দূত গত ০৬ ফেব্রুয়ারি বুধবার থেকে গতকাল ০৮ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার পর্যন্ত পিয়ংইয়ংয়ে উত্তর কোরিয়ার প্রতিনিধি কিম হিয়োক চোলের সঙ্গে বৈঠক করেন।

তিন দিনের এ বৈঠকে তারা ট্রাম্প-কিম শীর্ষ সম্মেলনের প্রস্তুতি নিয়ে কথা বলার পাশাপাশি গত বছর ২০১৮ সালের জুনে সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত প্রথম শীর্ষ বৈঠকে প্রতিশ্রুত পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ, যুক্তরাষ্ট্র-উত্তর কোরিয়া সম্পর্কের পরিবর্তন এবং কোরীয় উপদ্বীপে দীর্ঘস্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠার উপায় নিয়ে আলোচনা করেছেন। এতে কোনো অগ্রগতি হয়েছে কিনা তা খোলাসা করেনি মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

হ্যানয়ে ট্রাম্প-কিম বৈঠকের আগে বিগেন ও চোল ফের আলোচনায় বসবেন বলেও জানিয়েছে তারা।

উল্লেখ্য, গত বছরের জুনে সিঙ্গাপুরে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কিম জং-উনের মধ্যে প্রথম ঐতিহাসিক বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের বিষয়ে আলোচনার সূত্রপাত হয়। পরে দক্ষিণ কোরিয়ার মধ্যস্থতায় এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বেশ কয়েকবার আলোচনাও হয়েছে। উত্তর কোরিয়া ও দক্ষিণ কোরিয়ার দুই শীর্ষ নেতার মধ্যে বৈঠক হয়েছে।

পাশাপাশি উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকবার মিত্র দেশ চীন সফর করে প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সঙ্গেও আলোচনা করেছেন।

চলতি বছর ২০১৯ সালের ১৮ জানুয়ারি কিম জং-উনের ‘ডানহাত’ হিসেবে পরিচিত কিম ইয়ং চোল যুক্তরাষ্ট্র সফর করেন। এই সফরটি ছিল পরমাণু কূটনীতিতে উত্তর কোরিয়ার প্রথম পদক্ষেপ। এ সময় চোল মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার আলোচক চোলের সাক্ষাতের পরই দুই শীর্ষ নেতার দ্বিতীয় দফা বৈঠকের বিষয়টি নিশ্চিত হয়। সে সময় হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, ফেব্রুয়ারির শেষে বৈঠকটি হতে পারে।

Print Friendly, PDF & Email