বাঙালিনিউজ
টলিউড অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী।

বাঙালিনিউজ
বিনোদনডেস্ক

ভারতের ১৭তম লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের শাসক দল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসের কলকাতার যাদবপুর আসনে প্রার্থী হয়েছেন টলিউড সুন্দরী মিমি চক্রবর্তী। টলিউডের প্রথম সারির এই অভিনেত্রী যাদবপুরে প্রার্থী হওয়ায় প্রথম থেকেই এই আসন নিয়ে আলোচনা চলছে।

গ্ল্যামারাস এই প্রার্থীকে ঘিরে তৈরি হয়েছে বিতর্কও। তবে মিমি বার বার বলেছেন, ভোটারদের হৃদয় ছোঁয়ার চেষ্টায় কোনও ত্রুটি রাখবেন না তিনি।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সংসদীয় যাত্রা শুরু হয়েছিল এই যাদবপুর আসন থেকেই। ১৯৮৪ সালের ওই নির্বাচনে সিপিএম প্রার্থী বর্ষিয়ান নেতা সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়কে পরাজিত করে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মিমি এ বার প্রার্থী সেই যাদবপুর আসনেই।

ভারতের এই লোকসভা নির্বাচনের সপ্তম দফায় অর্থাৎ শেষ দফায় ভোটগ্রহণ করা হবে যাদবপুর আসনে। আর সে কারণে প্রার্থীদের অর্থ-সম্পদের হিসাব জমা দিতে হয়েছে নির্বাচন কমিশনে। সেখানে জানা গেছে টলিউড অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীর স্থাবর-অস্থাবর অর্থ-সম্পদের পরিমাণ কত।

মিমি চক্রবর্তীর হলফনামা থেকে জানা গেছে, তাঁর ফ্ল্যাট কোথায়। তার বর্তমান বাজারদর কত। কোন মডেলের গাড়িতে চড়েন তিনি। ব্যাঙ্কে জমা টাকার পরিমাণ কত ইত্যাদি। নির্বাচন কমিশনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় মিমি তাঁর সেই হলফনামা সব কিছু দিয়েছেন।

হলফনামায় মিমি জানিয়েছেন, তাঁর শিক্ষাগত যোগ্যতা স্নাতক। ২০১১ সালে আশুতোষ কলেজ থেকে পাশ করেছেন তিনি। মিমি জানিয়েছেন, তাঁর হাতে এই মুহূর্তে নগদ টাকার পরিমাণ ২৫ হাজার। তাঁর নামে ব্যাঙ্কে গচ্ছিত রয়েছে ৭৩ লক্ষ ৩৬ হাজার ৮২৫.৩৬ টাকা।

আর মিমির নিজস্ব দু’টি গাড়ি রয়েছে। এই দু’টি গাড়ির দাম মোট ৪২ লাখ ২৩ হাজার ২৭৩ টাকা। মিমি জানান, তাঁর কাছে গয়না রয়েছে ২৭১.০৪ গ্রাম। এই গয়নার বাজার দর ৮ লাখ ৮৫ হাজার ১৩ টাকা। এর মধ্যে উত্তরাধিকার সূত্রে প্রাপ্ত অলঙ্কারও রয়েছে।

মিমির স্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ১ কোটি ১৯ লাখ ২৮ হাজার ৬৭৫ টাকা। তবে তাঁর ঋণ রয়েছে ১৯ লাখ ৭৮৮ টাকা। অবশ্য তাঁর নামে কোনও জমি নেই। মিমির নামে কোনও রকম অপরাধমূলক মামলাও নেই।

Print Friendly, PDF & Email