বাঙালিনিউজ

বাঙালিনিউজ
জয়পুরহাট প্রতিনিধি

গতকাল ০৭ নভেম্বর ২০১৮ বুধবার দিনগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে, জয়পুরহাট শহরের আরামনগর মহল্লায় বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগে শিশুসহ একই পরিবারের প্রথমে ৩ জন নিহত হয়। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে আরো ৪ জনের মৃত্যু হয়। ফলে এই অগ্নিকাণ্ডের দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা ৭ জনে দাঁড়িয়েছে। এছাড়াও ওই পরিবারের আরও একজন দগ্ধ হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন।

অগ্নিদগ্ধ হয়ে নিহতরা হলেন- আরমনগর মহল্লার ব্যবসায়ী আব্দুল মোমিন (৩৭), তার মা মোমেনা বেগম (৬৫), স্ত্রী পরিনা বেগম, তিন মেয়ে হাসি, খুশি ও জেএসসি পরীক্ষার্থী বৃষ্টি এবং এক বছরের ছেলে আব্দুর নূর। এদের মধ্যে প্রথমে মারা যান মোমিন, মোমেনা ও বৃষ্টি।

ঢামেকে নেওয়ার পথে বাকি ৪ জনের মৃত্যু হয় বলে মিডিয়াকে জানান মোমিনের শ্যালিকা সুখী বেগম। তিনি জানান, দগ্ধদের মধ্যে এখন কেবল বেঁচে আছেন মোমিনের বাবা দুলাল হোসেন। তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জয়পুরহাট ফায়ার সার্ভিস স্টেনের ইনচার্জ সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণ করা হচ্ছে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত।

জয়পুরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) মমিনুল হক বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেন। ঘটনাস্থলেই ৩ জন মারা যান, দগ্ধ পরিবারের অন্য ৫ সদস্যকে প্রথমে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়।

এ বিষয়ে জয়পুরহাট আধুনিক জেলা হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. সাইফুল ইসলাম জানান, আহতদের শরীরের ৭০-৭৫ শতাংশই দগ্ধ হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email