bangalinews
প্রতীকী ছবি।

বাঙালিনিউজ
আন্তর্জাতিকডেস্ক

বাজিতে হেরে নিজের স্ত্রীকে জুয়াড়ি বন্ধুদের হাতে তুলে দিয়েছেন স্বামী। এ জন্য ঘর ছেড়েছিলেন স্ত্রী। কিন্তু ভুল স্বীকার করে স্ত্রীকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনার পথে ফের সেই ধর্ষক বন্ধুরা স্বামীর উপস্থিতিতে ওই নারীকে ধর্ষণ করে। কিন্তু থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দিতে গেলে ওই নারীকে ফিরিয়ে দেয় পুলিশ। বাধ্য হয়ে আদালতের দারস্থ হন তিনি। আদালতের নির্দেশে মামলা নিতে বাধ্য হয় থানা পুলিশ।

বিশ্বাস করুন, আর না করুন-ঘটনাটি সত্যি। ভারতের উত্তরপ্রদেশের জৌনপুর জেলার সম্প্রতি এই ঘটনা ঘটেছে। গণমাধ্যম সূত্রে এই খবর জানা গেছে।

গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়, নিজের বাড়িতে দুই বন্ধুর সঙ্গে জুয়া খেলতে বসেছিলেন এক ব্যক্তি। মদ্যপানও করেছিলেন তিনজন। কিন্তু জুয়া খেলায় ক্রমাগত হেরে যাচ্ছিলেন বাড়ির মালিক। হারতে হারতে তার জয়ের জন্য এমনই জিদ চেপে গিয়েছিল যে, শেষ পর্যন্ত নিজের স্ত্রীকে বাজি রেখেই জুয়া খেলায় মেতে ওঠেন তিনি। কিন্তু তাতেও হেরে যান ওই ব্যক্তি। ফলে জুয়ার আসরের প্রতিশ্রুতি ও শর্ত অনুযায়ী স্ত্রীকে দুই বন্ধুর হাতে তুলে দেন পরাজিত জুয়াড়ি স্বামী।

এর পরে ওই মহিলা তার মামার বাড়িতে চলে যান। তার স্বামী সেখানে গিয়ে বলেন, ভুল হয়ে গেছে। তাই তিনি স্বামীর সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন। কিন্তু সেই গাড়িতে স্বামীর ওই দুই ধর্ষক বন্ধু অরুণ এবং অনিলও ছিলেন। তারা মাঝপথে গাড়ি থামিয়ে ফের ওই নারীকে ধর্ষণ করেন।

এই ঘটনার পর ওই জুয়াড়ির স্ত্রী পুলিশের কাছে ধর্ষণের অভিযোগ জানাতে যান। কিন্তু পুলিশ অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে। তখন তিনি বাধ্য হয়ে আদালতে যান। বিচারক পুলিশকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। শেষ পর্যন্ত আদালতের নির্দেশে জৌনপুরের জাফরাবাদ থানায় এফআইআর দায়ের হয়। অভিযোগকারী জাফরাবাদ এলাকারই বাসিন্দা।

ওই নারী এফআইআর-এ জানিয়েছেন, তার স্বামী মদ্যপ এবং জুয়াড়ি। তার দুই বন্ধু অরুণ ও অনিল প্রায়ই তাদের বাড়িতে আসে। তিনজনে মদ্যপান করে ও জুয়া খেলে। একদিন তার স্বামী জুয়ায় তাকেই বাজি রেখেছিলেন। তিনি (স্বামী) হেরে যাওয়ার পরে অরুণ ও অনিল তাকে ধর্ষণ করেন।
খবর সূত্র: দ্য ওয়াল।

Print Friendly, PDF & Email