বাঙালিনিউজ
ফাইল ফটো।

বাঙালিনিউজ
বিনোদনডেস্ক

শোনা যাচ্ছে, ভারতের জনপ্রিয় টেলিভিশন অভিনেত্রী শ্বেতা তিওয়ারির দ্বিতীয় বিয়েও ভাঙছে! ইতোমধ্যে দ্বিতীয় স্বামী অভিনব কোহলির বিরুদ্ধে পুলিসের কাছে অভিযোগও দায়ের করেছেন শ্বেতা তিওয়ারি। শ্বেতার অভিযোগ, ২০১৩ সাল থেকে তাঁর প্রথম পক্ষের মেয়ে পলকের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করছেন বর্তমান স্বামী অভিনব। তাঁকে অশ্লীল ছবি দেখতে বাধ্য করছেন। শুধু তাই নয় শ্বেতার অভিযোগ, পলকের গায়েও হাত তুলেছেন অভিনব।

শ্বেতা তিওয়ারির পারিবারিক বিরোধের অভিযোগের ভিত্তিতে ইতোমধ্যেই পুলিস তার স্বামী অভিনবকে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে। পাশাপাশি অভিনবের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির বেশ কয়েকটি ধারায় অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে।

অভিনবের বিরুদ্ধে শ্বেতার একের পর এক অভিযোগ নিয়ে যখন সংবাদমাধ্যমে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে, তখন ছেলের সমর্থনে মুখ কুললেন অভিনবের মা। অভিনবের মা বলেন, তাঁর ছেলের সঙ্গে শ্বেতার কী হয়েছে, তা জানেন না তিনি। কিন্তু অভিনব নির্দোষ।

তিনি আরও বলেন, শ্বেতা এখন বিচ্ছেদ চাইছেন। কিন্তু শ্বেতা-অভিনবের ছেলে একা একা বড় হোক, তাঁর ছেলে সেটা কখনওই চান না। সেই কারণে অভিনব বিবাহ বিচ্ছেদে রাজি হচ্ছেন না বলেও তাঁর মা দাবি করেন।

পাশাপাশি তিনি বলেন, শ্বেতা যখন বিগ বসের ঘরে ছিলেন, তখন অভিনব একা পলকের দেখাশোনা করেছেন। ওই সময় মায়ের মতো করেই অভিনব পলককে আগলে রেখেছেন বলেও দাবি করেন শ্বেতা তিওয়ারির শাশুড়ি। যদিও অভিনব কোহলি এখনও পর্যন্ত এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেননি।


মেয়েকে অশ্লীলভাবে স্পর্শ করতেন, অভিনবের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক শ্বেতার প্রাক্তন স্বামী

এদিকে অভিনব কোহলির বিরুদ্ধে মুখ খুললেন শ্বেতা তিওয়ারির প্রথম স্বামী রাজা চৌধুরী। রিপোর্টে প্রকাশ, শ্বেতা যখন কাজ নিয়ে ব্যাস্ত থাকতেন এবং বাড়ির বাইরে থাকতেন, তখন নাকি পলকের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতেন অভিনব। শুধু তাই নয়, শ্বেতা বাড়িতে না থাকলে অভিনব নাকি পলকের শরীরও স্পর্শ করতেন অশ্লীলভাবে। রাজা চৌধুরী নিজেই তা একাধিকবার দেখেছেন বলে দাবি করেছেন।

রাজা চৌধুরীর দাবি, তিনি একবার শ্বেতা-অভিনবের মালাডের বাড়িতে যান মেয়ে পলকের সঙ্গে দেখা করতে। আর সেখানেই অভিনবের অশ্লীলতা তাঁর চোখে পড়ে বলে দাবি করেন রাজা। মেয়েকে অশ্লীলভাবে ছোঁয়ার অভিযোগে ওইদিন অভিনবের সঙ্গে তাঁর কথা কাটাকাটি শুরু হয় এবং শেষে তা হাতাহাতির পর্যায়েও পৌঁছে যায় বলে দাবি করেন ভোজপুরি অভিনেতা রাজা চৌধুরী।

রাজা চৌধুরী বলেন, অভিনবের ওই ব্যবহারের বিষয়ে তিনি একাধিকবার শ্বেতাকে জানিয়েছেন। কিন্তু তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী এসব কোনও বিষয়ই কানে তোলেননি বলেও অভিয়োগ করেন রাজা। শ্বেতা তিওয়ারির স্বামীর এই মন্তব্য প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই ফের বিষয়টি নিয়ে আরও একদফা জল্পনা শুরু হয়েছে। পলকের নিরাপত্তার জন্য এবার রাজা আইনের পরামর্শ নেবেন বলেও স্পষ্ট জানিয়েছেন। সূত্র: জি নিউজ।

Print Friendly, PDF & Email