বাঙালিনিউজ
চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে একটি উড়োজাহাজ ঘিরে রেখেছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। ঢাকা থেকে দুবাই যাওয়ার পথে, বিমানটি চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে অবতরণ করার পর উড়োজাহাজটি ঘিরে ফেলেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। জানা গেছে, উড়োজাহাজটিতে অস্ত্রধারী আছে বলে সেটি ঘেরাও করে রেখেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

বিমানটি ছিনতাইয়ের চেষ্টার পরপরই সেটি ঘিরে ফেলে পুলিশ ও র‌্যাব। ভেতরে একজন সন্দেহভাজন অস্ত্রধারী পাইলটকে জিম্মি করে রেখেছে। সূত্র জানায়, বিমানটি আজ ২৪ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৫টা ৪০ মিনিটের দিকে জরুরি অবতরণ করা হয়। বিমানবন্দরের একাধিক কর্মকর্তা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বর্তমানে সেখানে বিমান ওঠানামা বন্ধ রয়েছে।

বিমানের ভেতরে থাকা এক যাত্রীর সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ বিমানের একটি উড়োজাহাজ আজ ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ রোববার বিকেল তিনটা ২০ মিনিটে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের দিকে যাত্রা করে। সেখান থেকে উড়োজাহাজটির দুবাই যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর উড়োজাহাজটি থেকে যাত্রীদের নামিয়ে দেওয়া হয়।

উড়োজাহাজের ভেতরে অস্ত্রধারী অবস্থান করছেন সন্দেহে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সেটি ঘিরে রেখেছে। যাত্রীদের নিরাপদে বের করে আনা হয়েছে বলে জানান বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মিরাজ।

চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের (সিএমপি) অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশন) আমেনা বেগম বলেন, ‘শাহ আমানত বিমানবন্দরে বাংলাদেশ বিমানের একটি বিমান ছিনতাইয়ের চেষ্টা করা হয়েছিল। বিমানটি শাহ আমানত বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করেছে। বিমানটি থেকে পাইলট ও যাত্রীরা নিরাপদে বের হয়ে আসছে। বিমানটি ঘিরে রেখেছে পুলিশ সদস্যরা।’

আমেনা বেগম আরও বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে, বিমানের ভেতর একজন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী থাকতে পারে।’

সিভিল এভিয়েশন সচিব মহিবুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বিমানটির মধ্যে সন্দেহভাজ এক ব্যক্তি ও দুইজন ক্রু রয়েছেন। ঘটনার পরপরই র‌্যাবের একাধিক গাড়ি বিমানবন্দরের মধ্যে প্রবেশ করেছে। বিমানবন্দরটি বর্তমানে বন্ধ রাখা হয়েছে। বিমানবন্দরে বাইরে উৎসুক জনতা ভীড় করছেন।

Print Friendly, PDF & Email