বাঙালিনিউজ
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

বাঙালিনিউজ
নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে নেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে তাকে সিঙ্গাপুরে মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতাল থেকে ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পথে রওনা দিয়েছে ওবায়দুল কাদেরকে বহনকারী অ্যাম্বুলেন্স। কিছুক্ষণের মধ্যেই সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দেবে এয়ারবাস।

এদিকে বিএসএমএমইউ হাসপাতালের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ের অবস্থা এখন স্থিতিশীল। ধীরে ধীরে উন্নতির দিকে যাচ্ছে। আজ ০৪ মার্চ ২০১৯ সোমবার দুপুরে বিএসএমএমইউ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তারা এ কথা জানান। ের চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা মেডিকেল বোর্ডের সঙ্গে মিটিং করে বিএসএমএমইউ ভিসি তার সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে প্রেস বিফ্রিং করেন।

প্রেস ব্রিফিংয়ে চিকিৎসকরা জানান, তিনি (ওবায়দুল কাদের) নড়াচড়া করছেন, ভেন্টিলেশন খোলার চেষ্টা করছেন। তবে কষ্ট লাঘবের জন্য আমরা তার ঘুমের ওষুধ দিয়ে ঘুম পাড়িয়ে রেখেছি। তাছাড়া প্রসাবও স্বাভাবিক। এই থেকে বোঝা যায় তার অবস্থা আগের চেয়ে ভালো। অবস্থা স্থিতিশীল এবং ধীরে ধীরে উন্নতির দিকে যাচ্ছে। সিঙ্গাপুর থেকে আগত চিকিৎসকরাও তার চিকিৎসার বিষয়টি দেখছেন।

এদিকে, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে হাসপাতালে এসে পৌঁছেছেন ভারতের প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠি। আজ সোমবার দুপুর দেড়টায় তিনি বিএসএমএমইউ হাসপাতালে এসে পৌঁছান।

ভারতের এই কার্ডিওলজিস্ট সোমবার দুপুর ২টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) লাইফসাপোর্টে থাকা সেতুমন্ত্রীর শয্যাপাশে যান।

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা। পাশাপাশি সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল থেকে আসা তিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকও দেবী শেঠির সঙ্গে ওবায়দুল কাদেরের সবশেষ শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছেন। বিএসএমএমইউ সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

সূত্র জানায়, ওবায়দুল কাদেরকে দেখে মেডিকেল বোর্ডের সঙ্গে জরুরি বৈঠকে বসবেন ডা. দেবী শেঠি। সেই বৈঠকেই ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করা হবে। তার লাইফসাপোর্টের যন্ত্রাদি খুলে নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। পাশাপাশি বিদেশ নেয়ার মতো শারীরিক স্থিতিশীলতা আছে কিনা সেটি নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হবে। কাদের যদি এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে সিঙ্গাপুরে যাওয়ার ৪ ঘণ্টার স্ট্রেস সামলাতে পারেন তা হলে চিকিৎসকরা তাকে সেখানে পাঠানোর সিদ্ধান্ত দিতে পারেন। নতুবা হাসপাতালেই তাকে আরও অন্তত ৪৮ ঘণ্টা নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হতে পারে। মেডিকেল বোর্ডের সঙ্গে দেবী শেঠির বৈঠকের পরই ব্রিফ করবেন চিকিৎসকরা।

বাঙালিনিউজ

এর আগে ওবায়দুল কাদেরকে দেখতে ভারতের এই চিকিৎসক আজ সোমবার বেলা দেড়টায় বিএসএমএমইউতে পৌঁছেন। সোমবার বেলা ১২টায় একটি বিশেষ ফ্লাইটে রাজধানীর হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তার নামার কথা ছিল। কিন্তু তার আসতে ১ ঘণ্টা দেরি হয়। ডা. দেবী শেঠিকে বিমানবন্দরে গ্রহণ করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসকদের একটি প্রতিনিধিদল।

রোববার বিএসএমএমইউর চিকিৎসক ও সরকারি পর্যায় থেকে বলা হয়েছিল- ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় সর্বোচ্চ চেষ্টা চলছে। প্রয়োজনে দেশের বাইরে নেয়া হবে। সেটি সম্ভব না হলে বিশ্বের নামকরা চিকিৎসককে বিএসএমএমইউতে এনে তার চিকিৎসা দেয়া হবে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ডা. দেবী শেঠিকে আনার কথা ওঠে। শেষ পর্যন্ত আজ তাকে ঢাকায় আনা হলো।

এর আগে আজ সকালে বিএসএমএমইউ উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ডা. শহিদুল্লাহ শিকদার বলেন, ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থা এখন বিদেশ নিয়ে যাওয়ার মতো। ভারতের প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী শেঠি আসছেন। উনি আসার পর বিদেশে নিয়ে যাওয়ার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এর আগে গতকাল রোববার রাতে ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর থেকে চিকিৎসকদের তিন সদস্যের একটি দল ঢাকায় পৌঁছে।

ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসায় গঠিক মেডিকেল বোর্ডের একজন সদস্য জানান, সিঙ্গাপুর থেকে একজন হৃদ্‌রোগ বিশেষজ্ঞ, একজন পুষ্টি বিশেষজ্ঞ ও একজন টেকনিশিয়ান এসেছেন। তারা ওবায়দুল কাদেরের রিপোর্ট ও তার শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছেন। ওবায়দুল কাদেরের অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে।

এদিকে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ আজ সকালে বিএসএমএমইউতে সাংবাদিকদের জানান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের অবস্থা ক্রমান্বয়ে উন্নতির দিকে যাচ্ছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন-তাকে সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল বলেন, এখন পর্যন্ত দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে বিদেশে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে সবকিছু নির্ভর করছে তার সর্বশেষ শারীরিক অবস্থার ওপর। সোমবার সকালে বিএসএমএমইউতে এসে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, হৃদরোগের সমস্যা নিয়ে গতকাল ০৩ ফেব্রুয়ারি রোববার সকাল সাড়ে ৭টায় বিএসএমএমইউ হাসপাতালে ভর্তি হন ওবায়দুল কাদের। এরপর তাকে দেখতে হাসপাতালে ছুটে আসেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ একাধিক মন্ত্রী, এমপি ও আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন দল ও সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

Print Friendly, PDF & Email

Related posts