বাঙালিনিউজ
বিনোদনডেস্ক
এই বলি নায়িকারা খুব খুঁতখুঁতে স্বভাবের। পেটের পেশি বানাতে পরিশ্রমও কিছু কম করেন না তাঁরা। বলিউডের নতুন ট্রেন্ড নির্মেদ এবং সেক্সি অ্যাবস। তার জন্য নিয়ম করে ফিটনেস ট্রেনিং, কার্ডিও ট্রেনিং করেন ক্যাটরিনা, দীপিকা থেকে পরিণীতি। সোশ্যাল মিডিয়ায় জিম সেশনের ছবিও পোস্ট করে চমকে দিয়েছেন অনেকে।
বাঙালিনিউজ
সুস্মিতা সেন

সুস্মিতা সেন: সেরা ফিগারের বিচারে যে কোনও বয়সের মহিলাকে টেক্কা দিতে পারেন ৪২ বছরের এই নায়িকা। ইনস্ট্রাকটরের পরামর্শ মতো নিয়মিত কার্ডিও ট্রেনিং করেন সুস্মিতা। তাঁর অ্যাবস সত্যিই ঈর্ষণীয়।

উর্বশী রাউতেলা: বলিউডে ফিট নায়িকাদের মধ্যে প্রথম সারিতেই পড়েন উর্বশী। নিয়ম মেনে প্ল্যাঙ্ক, লেগ-প্রেস বা ক্রাঞ্চ পুশ-আপস করেন এই নায়িকা। তা ছাড়া, সপ্তাহে দু’দিন যোগা করেন তিনি। ২০১৫ সালে ‘মিস ডিভা’র শিরোপা ছিনিয়ে নিয়েছিলেন উর্বশী। ওই বছর ‘মিস ইউনিভার্স’ প্রতিযোগিতায় ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্বও করেছিলেন তিনি।

মালাইকা অরোরা: যে কোনও উঠতি তারকাকে ক্লিন বোল্ড করতে পারেন মালাইকা। সন্তানের মা হওয়ার পরেও তাঁর ফিট বডি এবং অ্যাবস যে কারও কাছেই ঈর্ষণীয়। মণিরত্নমের ‘দিল সে’ সিনেমায় ‘ছাইয়া ছাইয়া’ গানের সঙ্গে মালাইকার নাচ ও তাঁর অ্যাবসের মুভমেন্ট বক্স-অফিস কাঁপিয়ে দিয়েছিল। নায়িকা জানিয়েছেন, এক দিনের জন্যও ফিটনেস ট্রেনিং মিস করেন না তিনি।

বাঙালিনিউজ
কারিনা কাপুর

কারিনা কাপুর: প্রেগন্যান্সির পর যথেষ্ট ওজন বেড়েছিল এই নায়িকার। যোগা এবং কার্ডিও ট্রেনিংয়ের পর কারিনা ফের সেক্সি অ্যাবসের অধিকারিনী। তিনি জানিয়েছেন, সেলেব্রিটি ফিটনেস ট্রেনার নম্রতা পুরোহিতের টিপস মেনেই নিয়মিত শরীরচর্চা করেন তিনি। ইনস্টাগ্রামে নিজের জিম সেশনের ছবিও পোস্ট করেছিলেন কারিনা কাপুর।

বাণী কাপুর: গ্ল্যামার জগতে পা রাখার আগে ৭৫ কিলোগ্রাম ওজন ছিল বাণীর। ডেবিউ ছবি ‘শুদ্ধ দেশি রোম্যান্স’-এর সাফল্যের পর পুরোপুরি মেকওভার করে নেন নায়িকা। ‘বেফিকরে’ ছবিতে তাঁর ফিটনেস ও স্টাইল দর্শকমহলে বেশ জনপ্রিয় হয়। নায়িকা জানিয়েছেন, সপ্তাহে চারদিন জিমে গিয়ে ওয়ার্কআউট ছাড়াও নিয়মিত যোগা, স্ট্রেচিং ও ওয়েট ট্রেনিং করেন তিনি।

সোনম কাপুর: বলিউডে এন্ট্রি নেওয়ার আগে সোনমের ওজন ছিল ৮৫ কিলোগ্রাম। ‘সাওয়ারিয়া’ ছবির স্ক্রিন টেস্টের আগে প্রায় ৩৫ কিলোগ্রাম ওজন ঝরিয়েছিলেন সোনম। বলিউডের ‘ফ্যাশনিস্তা’ জানিয়েছেন, ওয়েট ট্রেনিং, কার্ডিও, যোগা ছাড়াও নিয়ম করে কত্থক নাচের ট্রেনিং নেন এই নায়িকা।

বাঙালিনিউজ
দিশা পাটানি

দিশা পাটানি: দিশার ‘কার্ভি’ বডি বলিউডের নতুন হট ট্রেন্ড। নায়িকা জানিয়েছেন, রুটিন মেনে সকালে কার্ডিও, কিক বক্সিং ও জিমন্যাস্টিকস ট্রেনিং নেন তিনি। সন্ধ্যায় ওয়েট ট্রেনিং। লো ক্যালোরি প্রোটিন ডায়েটই তাঁর ফিটনেসের মূল মন্ত্র।

লিজা হেডেন: সেরা ফিগারের তালিকায় অবশ্যই নাম করা যায় মডেল ও অভিনেত্রী লিজা হেডেনের। নিয়মিত ওয়েট ট্রেনিং ও লো ক্যালোরি ডায়েটই তাঁকে এমন সেনসেশনাল অ্যাবস দিয়েছে বলে জানিয়েছেন বি-টাউনের ‘ডাস্ক বিউটি’।

জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ: পুষ্টিকর খাবার, সঠিক সময় ঘুম এবং নিয়ম মেনে শরীরচর্চা— এই তিন মন্ত্রই মেনে চলেন ফিটনেস ফ্রিক জ্যাকলিন। এই বলি ডিভার পছন্দের ফিটনেস ট্রেনিং হল স্ট্রেচিং এবং যোগা।

বাঙালিনিউজ
কঙ্গনা রানাওয়াত

কঙ্গনা রানাউত: শুরুর দিকে ওজন অনেক কম থাকলেও ‘কার্ভি বডি’ বানাতে নিয়ম মেনে কার্বোহাইড্রেট ও প্রোটিন ডায়েট শুরু করেছিলেন নায়িকা। ওয়েট ট্রেনিং-এর পাশাপাশি পুষ্টিকর খাবারও তাঁর ডায়েটে রাখেন বলে জানিয়েছেন কঙ্গনা।

দীপিকা পাদুকোন: বরাবরই অ্যাথলেটিক বডি দীপিকার। তা ছাড়া নিয়ম মেনে ওয়েট ট্রেনিং ও কার্ডিও করেন এই নায়িকা। খেতে নাকি খুবই ভালবাসেন দীপিকা। মাঝে মাঝে ‘চিট মিল’-এর দিকে হাত বাড়ালেও ডায়েট চার্ট মেনে চলারই চেষ্টা করেন তিনি।

আলিয়া ভট্ট: বলিউডের ‘চাবি গার্ল’ আলিয়া মেকওভারের পর এখন স্টানিং, হট ডিভা। আলিয়া জানিয়েছিলেন ‘স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার’ ছবির আগে তিন মাসের মধ্যে অন্তত ১৫ কিলোগ্রাম ওজন ঝরিয়েছিলেন তিনি।

বাঙালিনিউজ
শিল্পা শেঠী

শিল্পা শেট্টি: বলিউডের ‘যোগা কুইন’ শিল্পা বরাবরই স্বাস্থ্য সচেতন। ওয়েট ট্রেনিং ও যোগার উপর তাঁর অজস্র ডিভিডি রয়েছে। নিয়ম মেনে ডায়েট ও শরীরচর্চাই তাঁর ফিটনেসের মূলমন্ত্র বলে জানিয়েছেন নায়িকা।

নার্গিস ফাকরি: বি-টাউনে সুপার অ্যাথলেটিক বডি নার্গিসের। ওই বলি ডিভা জানিয়েছেন, রোজ নিয়ম মেনে ২৫টি পুশ আপ এবং ১০০টি সিট আপ করেন তিনি।

শ্রদ্ধা কাপুর: জাঙ্ক ফুড নাকি একেবারেই নাপসন্দ শ্রদ্ধার। পুষ্টিকর খাবারই সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেন নায়িকা। তা ছাড়া, সুন্দর ত্বকের জন্য রোজ প্রচুর পরিমাণ ফল খান শ্রদ্ধা। একদিনের জন্যও নাকি শরীরচর্চা বাদ দেন না তিনি।

বাঙালিনিউজ
ক্যাটরিনা কাইফ

ক্যাটরিনা কাইফ: নিষ্ঠার সঙ্গে ফিটনেস ট্রেনিং করেন ক্যাটরিনা। তাঁর ফিটনেস ইনস্ট্রাক্টর ইয়াসমিন করাচিওয়ালা জানিয়েছেন, রোজ এক ঘণ্টা কার্ডিও ট্রেনিং করেন ক্যাট। ‘চিকনি চামেলি’, ‘শিলা কী জওয়ানি’ কিংবা ‘কমলি’ গানের ফিগার ইয়াসমিনের নির্দেশেই তৈরি।

পরিণীতি চোপড়া: সম্প্রতি ‘জানেমন আহ’ আইটেম নম্বরে অ্যাবস দেখিয়ে নয়া লুকে চমকে দিয়েছিলেন পরিণীতি। বাড়তি ওজন ঝরিয়ে বলিউডের ‘বাবলি গার্ল’ এখন হট, ডিভাদের মধ্যে প্রথম সারিতে চলে এসেছেন। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা।

Print Friendly, PDF & Email