বাঙালিনিউজ
আজ ১০ মার্চ ২০১৯ রোববার সকালে, ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ১৫৭ জন আরোহীর সবাই নিহত হয়েছেন। প্রতীকী ছবি

বাঙালিনিউজ
আন্তর্জাতিক ডেস্ক

আজ ১০ মার্চ ২০১৯ রোববার সকালে, ের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়েছে। বিমানটিতে ১৪৯ জন যাত্রী ও ৮ জন ক্রুসহ ১৫৭ জন আরোহী ছিলেন। জানা গেছে, বিধ্বস্ত বিমানটির সবাই নিহত হয়েছেন। ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্স এক বিবৃতিতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

তবে কি কারণে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে বিবৃতিতে সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানায়নি এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ। বিমানটি একেবারেই নতুন ছিল এবং গত নভেম্বরে এটি ফ্লাইট পরিচালনা শুরু করে।

রাষ্ট্রমালিকানাধীন ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সকে আফ্রিকার সবচেয়ে সেরা সেবাদানকারী এয়ারলাইন্স হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

জানা গেছে, ইথিওপিয়ার রাজধানী আদ্দিস আবাবা থেকে যাত্রীবাহী বিমান বোয়িং ৭৩৭-৮ ম্যাক্স কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবি যাওয়ার পথে বিধ্বস্ত হয়েছে। ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে যাত্রীদের পরিবারের প্রতি শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন।

ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের এক বিবৃতিতে বলা হয়, ১৪৯ যাত্রী এবং আটজন ক্রুকে নিয়ে আদ্দিস আবাবা থেকে ছেড়ে যাওয়ার ছয় মিনিট পরেই সকাল ৮টা ৪৪ মিনিটে এটি বিধ্বস্ত হয়। আদ্দিস আবাবা থেকে ৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে দেবরি জেট অথবা বিশফটু এলাকায় বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, তল্লাশি ও উদ্ধার অভিযান চলছে।

রাষ্ট্র সম্প্রচার মাধ্যম ইবিসি তাদের খবরে জানিয়েছে, বিমানটিতে ৩৩টি দেশের নাগরিক ছিল এবং তারা সবাই মারা গেছেন। ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের একজন মুখপাত্র জানান, বিমানটিতে কেনিয়ার ৩২ এবং ইথিওপিয়ার ১৭ জন নাগরিক ছিল।

কেনিয়ার পরিবহনমন্ত্রী জেমস ম্যাকারিয়া সাংবাদিকদের জানান, কেনিয়া কর্তৃপক্ষ এখনো যাত্রীদের তালিকা পাননি। পরিবারের সদস্য এবং বন্ধুদের জন্য একটি জরুরি সেবাকেন্দ্র চালু করা হয়েছে।

ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী আবি আহমেদের অফিস এক টুইটে বলেছে, ের কারণে যারা তাদের প্রিয়জনকে হারিয়েছেন তাদের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি। ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের যাত্রীবাহী বিমান সর্বশেষ ২০১০ সালে লেবাননে বড় দুর্ঘটনায় পড়েছিল। ওই দুর্ঘটনায় ৮৩ জন যাত্রী ও ৭ জন ক্রু প্রাণ হারিয়েছিলেন। সূত্র: এপি, বাসস, ইউএনবি।

Print Friendly, PDF & Email