বাঙালিনিউজ

বাঙালিনিউজ
নিজস্ব প্রতিবেদক

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার জাতির উদ্দেশে ভাষণ আজ ০৮ নভেম্বর ২০১৮ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় প্রচারিত হবে। আজই বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনে (বিটিভি) ধারণের পর তা প্রচার করা হবে। ইতোমধ্যে ভোটগ্রহণের সময় নির্ধারণের বৈঠক শেষ।

আজ দুপুরে বৈঠক শেষে নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাৎ হোসেন চৌধুরী বলেন, সবকিছু ঠিক মতই এগুচ্ছে। জাস্ট ওয়েট, জানতে (কবে ভোট) পারবেন।

ইসি কর্মকর্তারা বলছেন, তফসিল ঠিকঠাক মতই ঘোষণা করা হবে। আর ভোটগ্রহণ ২০ ডিসেম্বরের দিকে সম্পন্ন হতে পারে। তবে জানুয়ারির প্রথমদিকে ভোটগ্রহণ হলেও প্রস্তুতি থাকবে ইসির।

তফসিলকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে জেলা পর্যায়ে নির্বাচনী উপকরণ পাঠানো হয়েছে। এতে প্রার্থীদের মনোনয়ন, জামানত বইসহ অন্য উপকরণ রয়েছে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার তাঁর ভাষণে ভোটগ্রহণের তারিখ ও মনোনয়পত্র দাখিলের চূড়ান্ত দিনক্ষণ ঘোষণা করবেন। এছাড়া, মনোয়নপত্র যাচাই-বাছাই, প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ও প্রতীক বরাদ্দসহ পূর্ণাঙ্গ তফসিল দেবেন তিনি। নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক দলগুলো ও নির্বাচনী কর্মকর্তাদের উদ্দেশে বিভিন্ন দিক নিদের্শনাও তুলে ধরা হবে এ ভাষণে।

তফসিল ঘোষণার আগে নির্বাচন কমিশন কয়েকটি রাজনৈতিক দল ও জোটের সঙ্গে বৈঠক করেছে। এর মধ্যে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এখনই তফসিল ঘোষণার বিরোধিতা করেছে। তবে আজ ০৮ নভেম্বর একাদশ জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পক্ষে সমর্থন জানিয়েছে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি।

গতকাল কমিশনের সঙ্গে আলাদা বৈঠকে বৃহস্পতিবার তফসিলের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানায় দল দুটি। যুক্তফ্রন্টও তফসিল ঘোষণার তারিখ পেছানোর বিরোধিতা করেছে। ইসলামপন্থী কয়েকটি দলেরও সরকার পক্ষের প্রতি সমর্থন রয়েছে। তবে ৮ দলীয় বামপন্থী জোট তাদের সংলাপের ফলাফলের অপেক্ষায় রয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email