বাঙালিনিউজ

দ্যুতিময় বুলবুল
বাঙালিনিউজ, ঢাকা

আজ ১১ মার্চ ২০১৯ সোমবার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ বা ডাকসু নির্বাচন। সকাল ৮টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হবে। স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে এটি ডাকসুর অষ্টম নির্বাচন। ১৯৯০ সালে সবশেষ ডাকসু নির্বাচন হয়েছিল। এরপর আর নির্বাচন হয়নি। দীর্ঘ ২৮ বছর পর, এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ১৯২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) সৃষ্টি হয়। সেই থেকে এ পর্যন্ত মোট ৩৬ বার এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ছাত্রদল ও ছাত্র ইউনিয়নসহ মোট ৯টি ছাত্র সংগঠন ও জোট ডাকসু এবং হল সংসদের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। দীর্ঘদিন পর নির্বাচন হওয়ায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে তৈরি হয়েছে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা। নির্বাচন উপলক্ষে ইতোমধ্যে প্রচার-প্রচারণা শেষ করেছেন প্রার্থীরা। গত ০৯ মার্চ শনিবার রাত ১২টা পর্যন্ত চলে প্রচারণা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ গতকাল ১০ মার্চ জানিয়েছে, ডাকসু এবং ১৮টি আবাসিক হল সংসদের নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। ডাকসুর ২৫টি পদের জন্য ২২৯ জন এবং প্রতিটি হল সংসদের ১৩টি করে পদের জন্য ৫০৯ জন প্রার্থী হয়েছেন। সব প্রার্থী মিলে মোট ৭৩৮ জন প্রার্থী এবারের নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। কেন্দ্রীয় সংসদে ২৫টি ও হল সংসদের ১৩টিসহ মোট ৩৮টি পদের জন্য ভোট দেবেন শিক্ষার্থীরা। ১৮ হলে প্রস্তুত করা হয়েছে ৫০৮টি বুথ। ৪২ হাজার ৯২৩ ভোটারের জন্য এসব বুথ তৈরি করা হয়েছে। হল প্রাধ্যক্ষ ও রিটার্নিং কর্মকর্তারা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, সলিমুল্লাহ মুসলিম হলে বুথ ৩৫টি, শহীদুল্লাহ হলে ২০টি, ফজলুল হক মুসলিম হলে ৩৫টি, অমর একুশে হলে ২০টি, জগন্নাথ হলে ২৫টি, কবি জসীম উদ্দীন হলে ২০টি, মাস্টারদা সূর্যসেন হলে ৩২টি, হাজী মুহাম্মদ মুহসীন হলে ৩০টি, রোকেয়া হলে ৫০টি, কবি সুফিয়া কামাল হলে ৪৫টি, শামসুন্নাহার হলে ৩৫টি, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হলে ২০টি, বাংলাদেশ-কুয়েত মৈত্রী হলে ১৯টি, শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলে ২১টি, স্যার এ এফ রহমান হলে ১৬টি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে ২৪টি, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হলে ২০টি এবং বিজয় একাত্তর হলে ৪০টি বুথ থাকছে।

ডাকসুর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত তালিকায় দেখা যায়, কেন্দ্রীয় সংসদে ভিপি পদে ২১ জন এবং জিএস পদে ১৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া এজিএস পদে ১৩ জন, স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক পদে ১১ জন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক পদে ৯ জন, কমনরুম-ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক পদে ৯ জন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে ১১ জন, সাহিত্য সম্পাদক পদে ৮ জন, সংস্কৃতি সম্পাদক পদে ১২ জন, ক্রীড়া সম্পাদক পদে ১১ জন, ছাত্র পরিবহন সম্পাদক পদে ১০ জন, সমাজসেবা সম্পাদক পদে ১৪ জন এবং ১৩টি সদস্য পদের বিপরীতে ৮৬ জন এই নির্বাচনে লড়ছেন।

অন্যদিকে হল সংসদে ১৮টি হলে ১৩টি করে পদের বিপরীতে মোট ৫০৯ জন প্রার্থীর মধ্যে সলিমুল্লাহ মুসলিম হলে ২৭ জন, জগন্নাথ হলে ২৮ জন, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হলে ১৭ জন, মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হলে ২৬ জন, অমর একুশে হলে ২৯ জন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলে ২৭ জন, বাংলাদেশ কুয়েত মৈত্রী হলে ৩৪ জন, হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলে ৩৩ জন, রোকেয়া হলে ৩০ জন, কবি সুফিয়া কামাল হলে ৩০ জন, শামসুন্নাহার হলে ২৫ জন, কবি জসীম উদ্দীন হলে ২৫ জন, ড. মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ হলে ২২ জন, ফজলুল হক মুসলিম হলে ৩৬ জন, বিজয় একাত্তর হলে ৩০ জন, শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলে ২৭ জন, স্যার এ এফ রহমান হলে ৩৭ জন এবং সূর্যসেন হলে ২৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জানিয়েছে, নির্বাচনকে ঘিরে ক্যাম্পাসে নেয়া হয়েছে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা। নির্বাচন উপলক্ষে ১৮ হলে ১১৩টি ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরা বসিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে এ ক্যামেরার ব্যবহার বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

Print Friendly, PDF & Email

Related posts